আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট,আরন্যক হলিডে রিসোর্ট,হ্যাপি আইল্যান্ড,রাঙ্গামাটি,রাঙামাটি,আরন্যক,আরণ্যক,রাঙ্গামাটি ভ্রমণ গাইড,কাপ্তাই,রাঙ্গামাটি দর্শনীয় স্থান,চট্টগ্রামের সংবাদ

”আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট” পরিচিতি

সেনানিবাস এলাকায় অভিরুপ প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়া পারিবারিক চিত্তবিনোদন কেন্দ্রেটির নাম হল আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট(Aronnak Holiday Resort) যা রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত। কাপ্তাই লেক ঘিরে শান্ত ও নিপুন পরিবেশের আরণ্যক রিসোর্টটি বিচক্ষণ ভাবে মনে হয় যেন ছবির মত সাজানো গোছানো। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দ্বারা পরিচালিত মনোমুগ্ধকর এই রিসোর্টে আছে ছোটদের জন্য বিভিন্ন রাইড, পেডেল বোট, সুইমিং পুল, হ্যাপি আইল্যান্ড, ওয়াটার ওয়ার্ল্ড, রেস্টুরেন্ট এবং খেলাধুলার সুব্যবস্থা।

সবুজ ঘাসে মোড়ানো কাপ্তাই লেকের পাড়ে আরণ্যক রিসোর্টের প্রথম অংশে রয়েছে অপরুপ ফুলের বাগান, নানা রকম ভাস্কর্য, কফি শপ, রিসোর্ট, স্পিডবোট ও প্যাডেল বোটে চড়ার সুব্যবস্থা। আপনি চাইলে আরণ্যক রিসোর্ট(Aronnak Holiday Resort) এর সবকিছু ঘুরে দেখতে পারবেন রিসোর্টে রুম বুকিং করা ছাড়াও। তার জন্যে ৫০ টাকা দিতে হবে প্রবেশ টিকেট ফি। আরণ্যক হলিডে রিসোর্টের দ্বিতীয় অংশে আছে হ্যাপি আইল্যান্ডে, ওয়াটার ওয়ার্ল্ড, রাইডার, বোট রাইডিং, পার্ক এবং লেকভিউ সুইমিং পুল। হ্যাপি আইল্যান্ডের ওয়াটার ওয়ার্ল্ডে প্রবেশ করতে চাইলে টিকেটে ফি ১৫০ টাকা দিতে হবে। শুধুমাত্র প্রতি সোমবার পর্যটকদের জন্যে প্রবেশ পথ বন্ধ থাকে।

আরণ্যক হলিডে রিসোর্টের মোবাইল নাম্বার ও তাদের ফেসবুক পেইজের লিংক প্রদান করা হলঃ
মোবাইল: 01769-312021
ফেসবুক পেইজ: fb.com/AronnakHolidayCottage

”আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট” কিভাবে যাবেন

ঢাকার সায়দাবাদে এবং ফকিরাপুল মোড় থেকে রাঙ্গামাটি যাওয়ার অসংখ্য বাস সার্ভিস রয়েছে। সাধারণত এই বাসগুলো সকাল ৮ টা থেকে ৯ টা এবং রাত ৮ টা ৩০ মিনিট থেকে রাত ১১ টার মধ্যে ঢাকা হতে রাঙ্গামাটির উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ঢাকা থেকে রাঙ্গামাটি শ্যামলীর প্রতি সীট এসি বাসের ভাড়া ৯০০ টাকা, বিআরটিসি প্রতি সীট এসি বাসের ভাড়া ৭০০ টাকা করে। তাছাড়া সকল নন-এসি বাসের ভাড়া ৬০০ থেকে ৭০০ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন।

চট্টগ্রাম শহরের অক্সিজেন মোড় হতে রাঙ্গামাটিগামী বিভিন্ন ধরনের লোকাল ও গেইটলক বাস পাওয়া যায়। একটু বেশি ভাড়া হলেও গেইটলক বা ডাইরেক্ট বাসে করে যাবেন তাহলে তাড়াতাড়ি যেতে পারবেন। চট্টগ্রাম থেকে রাঙ্গামাটি গেইটলক/ডাইরেক্ট বাস ১৫০ টাকার ভাড়া করতে পারবেন। রাঙ্গামাটিগামী বাস চট্টগ্রামের বহাদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকেও পেয়ে যাবেন খুব সহজে।

”আরণ্যক হলিডে রিসোর্টে” কোথায় থাকবেন

আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট,আরন্যক হলিডে রিসোর্ট,হ্যাপি আইল্যান্ড,রাঙ্গামাটি,রাঙামাটি,আরন্যক,আরণ্যক,রাঙ্গামাটি ভ্রমণ গাইড,কাপ্তাই,রাঙ্গামাটি দর্শনীয় স্থান,চট্টগ্রামের সংবাদ

থাকার জন্যে আরণ্যক রিসোর্টে অনেক ধরণের রুম আছে। আরণ্যক লাক্সারি, গাংশালিক লাক্সারি, টুইন বাংলো কটেজ ও স্ট্যান্ডার্ড নামের এই রুম গুলোতে থাকতে হলে প্রতি দিনের জন্যে আপনাকে খরচ করতে হবে ৫,০০০ থেকে ১০,০০০ টাকা সাথে থাকছে সম্মানসুচক সকালের নাস্তা, ফ্রি ওয়াইফাই ও আরও অনেক সুবিধা।

তাছাড়া রিসোর্টে যদি শুধুমাত্র ঘুড়াঘুড়ির জন্য যান যেতে পারবেন সমস্যা নেই এবং অন্য কোথাও যদি রাতে থাকতে চান তাহলে রাঙ্গামাটি শহরের অন্যান্য হোটেল অথবা রিসোর্টে থাকতে পারবেন। রাঙ্গামাটিতে অবস্থিত উল্লেখযোগ্য হোটেলের মধ্যে রয়েছে পর্যটন হোটেল সুফিয়া ইন্টারন্যাশনাল, হলিডে কমপ্লেক্স, গ্রিন ক্যাসেল, হোটেল প্রিন্স, হোটেল সাংহাই, মোটেল জজ।

”আরণ্যক হলিডে রিসোর্টে” কোথায় খাবেন

খাওয়া দাওয়া করার জন্য আরণ্যক রিসোর্টের মধ্যেই রেস্টুরেন্ট রয়েছে। চাইলে সেখানে খুব সহজে খেয়ে নিতে পারবেন। আগে থেকেই অর্ডার করে দিতে হবে যদি খেতে চান এই রেস্টুরেন্টে। তাছাড়া আরণ্যক রিসোর্টের আশেপাশে তেমন ভাল মানের কোন হোটেল গড়ে উঠে নাই। তবে সাধারণ মানের হোটেলে খেতে চাইলে ওইভাবে মানিয়ে নিয়ে খেতে হবে যদি আপনি খেতে পারেন তাহলে খাবেন। আর যদি সম্ভব হয় তাহলে মাত্র ৩ কিলোমিটার দূরে বনরুপা বাজার অবস্থিত সেখানে গিয়ে দুপুরের খাবার সেরে আসতে পারেন।

”আরণ্যক হলিডে রিসোর্ট” ভ্রমণ টিপস ও সতর্কতা

  • গ্রুপ করে যাওয়া চেষ্টা করুন তাহলে খরচ কম হবে।
  • কিছু কিনতে বা খাবার খেতে হলে দরদাম করে নিবেন এতে করে আপনার খরচ বাঁচবে।
  • যাওয়ার আগে অবশ্যই আমাদের প্রদান করা আরণ্যক হলিডে রিসোর্টের মোবাইল নাম্বার ও তাদের ফেসবুক পেইজে যোগাযোগ করে যাবেন যদি সেখানে থাকতে চান।
  • প্রয়োজনে আগে থেকে সব কিছু বুকিং করে যাবেন কারণ ছুটির দিন গুলোতে বেশি মানুষ যেয়ে থাকে।
  • যানবাহন ভাড়া করার সময় দরদাম করে নিবেন কারণ আপনার কাছে চালকরা বেশি দাম চাইবে।
  • দিন যতই যাবে সব কিছুর দাম ততই পরিবর্তন হতে থাকবে তাই যাওয়ার আগে অবশ্যই সব কিছু যাচাই করে যাবেন এবং আমাদের দেওয়া হোটেল বা রিসোর্ট ও রেস্টহাউজগুলোর ফোন নম্বরে কল করে থাকার ব্যবস্থা করে যাবেন যদি রাতে থাকতে চান।
  • কোথাও তাড়াহুড়া করে কোন কাজ করবেননা কারণ সময় থেকে জীবনের মূল্য অনেক বেশি।

বিশেষ নিবেদন

বাংলাদেশের যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের দেশের সম্পদ, আমাদের সম্পদ। এইসব স্থানগুলোর সৌন্দর্য্য রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। তাই এইসব স্থানের প্রাকৃতিক অথবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করবনা যাতে করে এইসব স্থানগুলোর সৌন্দর্য্য নষ্ট হয়ে যায়। আমারা বাঙালি তাই আমরা কখনই চাইবনা আমাদের দেশের সৌন্দর্য্য নষ্ট হয়ে যাক। আমরা নিজেরা সৌন্দর্য্য উপভোগ করি এবং সবাইকে উপভোগ করার সুযোগ করে দেই। এই দেশ আমাদের, এই দেশের সব কিছুই আমাদের তাই দেশের প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।

বিডি ট্রাভেলার গাইড টিম সব সময় চেষ্টা করবে আপনাদের কাছে সঠিক তথ্য প্রদান করতে। ভালো লাগলে শেয়ার করুন সবার সাথে এবং আমাদের সাথে থাকার অনুরুধ রইল। ধন্যবাদ।।।

হ্যাপি ট্যুর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here